ইউটিউব টিপস & ট্রিক্স | সফল ইউটিউবার হওয়ার কার্যকরী ও সহয উপায় !

ইউটিউব টিপস

ইউটিউব টিপস | ৬টি পদক্ষেপ গ্রহন করে হয়ে যান সফল ইউটিউবার

আপনি অবশ্যই ইউটিউব থেকে নিয়মিত লোকদের উপার্জন সম্পর্কে অনেক গল্প শুনেছেন এবং কোন একসময় ভেবেছিলেন আপনি কি উপার্জন করতে পারবেন? আপনার কাছে যদি শক্তিশালী গ্রাহক বেস থাকে তবে আপনি ইউটিউবে অর্থ উপার্জন শুরু করতে পারেন।

ইউটিউব চ্যানেল থেকে কীভাবে অর্থোপার্জন করতে হয় তা দেখানোর আগে আমি বিশ্বের জনপ্রিয় ভিডিও-শেয়ারিং অনলাইন ওয়েবসাইট ইউটিউব সম্পর্কে কিছু আকর্ষণীয় তথ্য তুলে ধরছি আপনাদের সামনে।

আপনি ইউটিউবের কিছু ফ্যাক্টস জানেন?

  • এটি ২০০৫ সালে চালু হয়েছিল।
  • ইউটিউব বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম সার্চ ইঞ্জিন যাদের সাইটে ১.৮ বিলিয়নেরও বেশি লোক নিবন্ধিত রয়েছে।
  • প্রতি ৬০ সেকেন্ডে ৩০০ ঘন্টারও বেশি এইচডি মানের ভিডিও ইউটিউবে আপলোড হচ্ছে।
  • ইউটিউবে প্রতিদিনের দর্শকদের সংখ‌্যা বিশ্বব্যাপী মোট ৩০ মিলিয়ন ।
  • প্রতিদিন ১ বিলিয়ন ঘন্টারও বেশি ভিডিও দেখা হচ্ছে।
  • মোট ১.৮ বিলিয়ন ইউটিউব ব্যবহারকারী লগইন করেছেন।

আপনি যদি ইউটিউব চ্যানেলে কীভাবে তৈরি করতে, প্রচার করতে এবং অর্থ উপার্জন করতে হয় তা জানতে চান , তবে এই নিবন্ধটি পড়তে থাকুন…

ইউটিউব থেকে অর্থ উপার্জন শুরু করতে আপনার কয়েকটি সাধারণ পদক্ষেপ অনুসরণ করতে হবে:

1. একটি ইউটিউব চ্যানেল সেট আপ করুন।
2. ইউটিউবের জন্য একটি বিষয় নির্বাচন করুন।
3. ভিডিও তৈরি করুন।
4. ভিডিও আপলোড করুন।
5. আপনার ইউটিউব ভিডিও প্রচার করুন।
6. ইউটিউব অংশীদারি প্রোগ্রামের জন্য আবেদন করুন

আরো পড়ুন:- অনলাইনে আয়ের সেরা ৫ ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট

১. একটি ইউটিউব চ্যানেল সেট আপ করুন

একটি ইউটিউব অ্যাকাউন্ট আপনার গুগল অ্যাকাউন্টের সমান এবং ইউটিউব অ্যাকাউন্ট তৈরি করার পর আপনাকে গুগল তাদের অন্যান্য সার্ভিসে অ্যাক্সেসের অনুমতি দেবে।

  • Www.youtube.com খুলুন এবং আপনার Gmail ব্যবহারকারী আইডি এবং পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে লগইন করুন।
  • এখন বাম কোণে অবস্থিত ইউটিউব লোগোটির পাশের বারটিতে ক্লিক করুন।
  • ড্রপ-ডাউন মেনু থেকে My Channels আপশনে ক্লিক করুন।
  • আপনার নামটি হাইলাইট করে একটি বাক্স ‘Set-up your channel on YouTube’ শিরোনাম সহ প্রদর্শিত হবে।
  •  আপনার অন্যান্য ব্যক্তিগত তথ্য সহ এখন চ্যানেল আপডেট করুন।
  • লোকেরা আপনার চ্যানেলটি সন্ধান করতে আপনাকে কীওয়ার্ড যুক্ত করতে হবে। এটি আপনার চ্যানেল সেটিংসের একটি বিভাগে আপনার বিষয় অনুসারে কীওয়ার্ড যুক্ত করতে পারে। আপনার কীওয়ার্ডগুলি আপনার বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত কিনা তা নিশ্চিত করুন।

ডিফল্টরূপে, ইউটিউব আপনাকে www.youtube.com/user/abcdefd0h0d2r…… এর মতো একটি URL সরবরাহ করবে। তবে আপনাকে অবশ্যই আপনার চ্যানেলের ব্র্যান্ড নেম URL টি www.youtube.com/user/UnboxCareer তৈরি করতে হবে।

ইউটিউব টিপস |সম্পুর্নরুপে আপনার চ‌্যানেল সেট আপ করুন।

2. ইউটিউবের জন্য একটি নিস (Niche)  খুঁজুন

অর্থ উপার্জনের জন্য আপনার ইউটিউব চ্যানেলের নিস বা বিভাগ নির্বাচন করা আপনার শখ বা আবেগ বা কাজের আগ্রহের সাথে অনেকটা সম্পর্কিত।আপনি যেসব বিষয়ে আগ্রহী এবং ভাল বুঝেন যে সমস্ত বিষয় বা ক্রিয়াকলাপের একটি তালিকা তৈরি করুন।
আপনি কি করতে পছন্দ করেন?আপনি কী সম্পর্কে উৎসাহী বা পাগল?

এই প্রশ্নগুলোর উত্তর বুঝেশুনে দিন যার ফলে আপনি খুঁজে পাবেন যে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটির বিষয়ে কী হওয়া উচিত।
এগুলি ইউটিউবের সর্বাধিক জনপ্রিয় নিস:

টেক, কৌতুক, শিক্ষা, বিনোদন, ফিল্ম, গেমিং, টিপস, এবং সংগীত।

৩. ভিডিও তৈরি করুন

আপনি অবশ্যই ইউটিউব ভিডিও দেখেছেন যা ভাইরাল হয়েছে এবং কয়েক মিলিয়ন ভিউ পেয়েছে। আপনি কি কখনও নিজের ইউটিউব ভিডিও তৈরি করতে চান?

একটি ভাল ইউটিউব ভিডিও তৈরি করার জন্য আপনার কী দরকার? অনেক ভাইরাল এবং জনপ্রিয় ইউটিউব ভিডিও হ’ল তৈরি ক্লিপ যা মোবাইল ফোন দিয়ে করা। সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি আপনি যে বিষয়টিকে ধারণ করেন তা আকর্ষণীয় বা মজাদার হতে হবে। যদি আপনার কাছে আকর্ষণীয় বিষয়টিতে দুর্দান্ত ভিডিও অথবা ফটো থাকে তবে আপনি সহজেই এটি ইউটিউবে আপলোড করতে পারেন!

যারা প্রথমবারের মতো ইউটিউবার, তাদের জন‌্য স্মার্টফোন বা ওয়েবক্যাম ব্যবহার করে ভিডিও তৈরি সহজ ও সস্তার উপায়।

সময়ের সাথে সাথে, আপনাকে একটি ভাল ভিডিও রেকর্ডার নিতে হবে এবং যখন আপনার চ্যানেল অর্থোপার্জন শুরু করবে আপনি একটি পেশাদার ভিডিওগ্রাফার এবং ভিডিও ইডিটরের সাহায্য নিতে পারেন।

ইউটিউব টিপস |ভালো মানের ভিডিও তৈরী করুন।

৪. ভিডিও আপলোড করুন

ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করা খুব সহজ:

  • Gmail অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে আপনার ইউটিউব অ্যাকাউন্টে সাইন ইন করুন।
  • আপলোড বোতামটি ক্লিক করুন: এটি শীর্ষে ডানদিকে কোণায় দেখা যেতে পারে এবং একটি তীর দ্বারা নির্দেশিত হয়।
  • ভিডিও উৎস নির্বাচন করুন এবং প্রাইভেসি সেটিংস করুন: আপনি যে কেউ এবং প্রত্যেকে এটি দেখতে চান কিনা তা আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী প্রাইভেসি সেটিংস সেট করুন। কেন্দ্রীয় ড্রপ-ডাউনে “public” সেটিংটি চয়ন করে, আপনার ভিডিওটি যে কেউ দেখতে পাবে।
  • আপলোড পরিচালনা করা:  আপলোড বোতামটি ক্লিক করার পরে, আপনি পৃষ্ঠার শীর্ষে একটি অগ্রগতি বার দেখতে পাবেন, এটি নির্দেশ করবে যে কতটুকু ভিডিও আপলোড হয়েছে এবং এটি সম্পূর্ণ হতে কত দিন সময় নেবে।
  • একটি থাম্বনেইল বাছুন: আপনার ভিডিওটি একবার ১০০% আপলোড এবং সফলভাবে প্রক্রিয়া করা হয়ে গেলে, আপনাকে ভিডিও থেকে থাম্বনেইলগুলি বেছে নিতে হবে অথবা এটি আপলোড করতে পারেন।
  • ভিডিও পরিচালনা: আপনি যদি ভবিষ্যতে আপনার ভিডিওতে কোনও পরিবর্তন করতে চান তবে আপনাকে নিজের অ্যাকাউন্টের “ক্রিয়েটার স্টুডিও” এ যেতে হবে।

৫ । আপনার ইউটিউব ভিডিও প্রমোট করুন

আপনি আপনার কঠোর পরিশ্রম ভিডিওটি তৈরি করতে এবং আপনার ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করতে পারেন তবে আপনি যদি এটি প্রচার না করেন তবে আপনার কঠোর পরিশ্রম অকেজো হয়ে যাবে।

আপনি যদি আপনার সঠিক দর্শকদের কাছে পৌঁছতে চান তবে আপনাকে আপনার চ্যানেলের প্রমোট করতে হবে। ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে অর্থ উপার্জনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক চ্যানেল এবং ভিডিওর বিপণন ও প্রচার।

ভিডিওর বিপণন এবং প্রচারও কঠোর পরিশ্রমের এবং প্রচারের জন্য আপনাকে একটি উপযুক্ত পরিকল্পনা করতে হবে। আপনি যতটা ভাবেন তত সহজ নয় বিষয়টি।

আপনার ভিডিওকে এসইও প্যারামিটার অনুযায়ী সম্পূর্ণরূপে অনুকূলিত করা লোকের কাছে পৌঁছানোর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্র।

সঠিক কীওয়ার্ড, মেটা বর্ণনায় একটি কীওয়ার্ড রেখে শিরোনাম অবশ্যই নিখুঁত হতে হবে যাতে লোকেরা আপনার ভিডিওকে সার্চ ইঞ্জিনের প্রথম পৃষ্ঠায় সন্ধান পেতে পারে।

একবার আপনি এসইও অপ্টিমাইজেশানটি সম্পন্ন করার পরে, তারপর আপনি অন্যান্য স‌্যোশাল মাধ‌্যমে শেয়ার করবেন যাতে ভিডিওর ভিউ বাড়ানো যায়।

ইউটিউব টিপস |বেশী বেশী করে ভিডিও ফেসবুক টুইটারে শেয়ার করুন ।

। ইউটিউব অংশীদারি প্রোগ্রামের জন্য আবেদন করুন

ইউটিউব অংশীদার প্রোগ্রামটি যোগ্য ইউটিউবারকে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে তাদের সৃজনশীল ভিডিওগুলি নগদীকরণের অনুমতি দেয়। ইউটিউবের পার্টনার প্রোগ্রামটি অনেক ইউটিউবারের শখকে লোভনীয় কেরিয়ারে পরিণত করা সম্ভব করেছে।

যে কেউ প্রচুর সংখ্যক শ্রোতা তৈরি করে তাদের ভিডিওতে প্রদর্শিত বিজ্ঞাপনগুলি থেকে উপার্জন করতে পারবেন। আপনার ভিডিওগুলি যত বেশি ভিউ পাবে ততই আপনি উপার্জন শুরু করবেন।

ইউটিউব চ্যানেল থেকে অ‌্যাডসেন্সের মাধ‌্যমে আয় করা সবথেকে জনপ্রিয় উপায়।

একবারে কোনও চ্যানেলে গত ১২ মাসে ৪০০০ ঘন্টা ভিও পেলেএবং কমপক্ষে ১০০০ জন গ্রাহক(subscribers) থাকলে প্রোগ্রামটিতে (এডসেন্সে) যোগদানের জন্য পর্যালোচনা করা হয়।

এখন ইউটিউব থেকে অর্থোপার্জন করুন

সূত্রমতে, একজন পেশাদার ইউটিউবার সিপিসি এবং সিপিআই বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ১০০০ ভিউতে ২-১২ মার্কিন ডলারের মধ্যে অর্থ উপার্জন করতে পারে।

আপলোড করা ভিডিও থেকে অর্থ উপার্জনের জন্য আপনি মনিটাইজেশন অপশনটি ব্যবহার করতে পারেন। এটি অর্থ উপার্জনের সহজ ও দ্রুততর উপায়। এর জন্য আপনাকে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি আপনার Google অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টের সাথে লিঙ্ক করতে হবে।

নিম্নলিখিত ৫ টি প্রমাণিত পদ্ধতি রয়েছে যার মাধ্যমে আপনি ইউটিউব থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন:

১) আফিলিয়েট মার্কেটিং
২) সরাসরি প্রমোশন
3) পেইড ভিডিও
4) লাইসেন্সিং কন্টেন্ট
5) ক্রাউডসোর্সিং

শেষ কথা:-

আপনার অবশ্যই মনে রাখতে হবে এটি অর্থ উপার্জনের সহজ এবং সহজতম উপায় তবে দ্রুততম উপায় নয়। প্রথম দিন থেকে অর্থ উপার্জন করা হবে না। এটার জন‌্য সময় এবং ধৈর্য উভয় প্রয়োজন। তবে সময়, ভাল কন্টেন্ট এবং কার্যকর বিপণন ও প্রচার করা হলে তা আপনার জন‌্য সহয হয়ে যাবে।

আপডেটেট ইউটিউব টিপস পেতে কানেক্ট থাকুন আমাদের ওয়েবসাইটে