ধর্ষণ বিরোধী ছাত্র ঐক্য পরিষদের মোমবাতি হাতে নিরব প্রতিবাদ

ধর্ষণ

বিংশ শতাব্দীর পূর্বে আমাদের সমাজের নব্বই শতাংশ লোক ধর্ষণ সম্পর্কে জানতনা।কালের বিবর্তনে ধর্ষনের ব‌্যাপকতা অনেক বেড়েছে আমাদের বাংলাদেশে।বিচারহীনতার সংস্কৃতি ও প্রভাবশালী হওয়ার কারনে ছাড় পেয়ে যাওয়া ধর্ষণের মতো ন‌্যাক্কারজনক ঘটনা ব‌্যাপকভাবে বৃদ্ধি করেছে।

সর্বশেষ নোয়াখালীতে এক নারীকে নৃশংসভাবে মধ‌্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন ও এমসি কলেজ সহ সারা দেশে ধর্ষণের বিরুদ্ধে ও ধর্ষকের শাস্তি একটাই ফাসির দাবিতে “ধর্ষণ বিরোধী ছাত্র ঐক্য পরিষদ” মোমবাতি হাতে নিয়ে হবিগন্জের মিরপুর বাজারে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক র‍্যালির মাধ্যমে নিরব প্রতিবাদ করে বিশ্বরোড পয়েন্ট(মিরপুর,হবিগন্জ) এসে প্রতিবাদ সভায় রুপ নেয়। হাফিজুর রহমান শাওনের পরিচালনায় প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন ছাত্রনেতা তোফায়েল আহমেদ,আমির আলী,ফয়সল আহমেদ, খালিদ মোশাররফ,রেদোয়ান শাহরিয়া,সোহান,মোজাহিদুল ইসলাম ফাহিম,আফরোজ প্রমুখ। 

বক্তাারা ধর্ষণের কঠোর শাস্তি ও নিরপরাধ মানুষ যাতে শাস্তি না পায় সে বিষয়ে আলোকপাত করেন।ধর্ষণের শাস্তি নিশ্চিত না করলে ভবিষ‌্যতে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার অভিপ্রায় ব‌্যাক্ত করেন ছাত্রনেতারা।

আরো পড়ুন:- নারীর মুল‌্যায়ন অবমুল‌্যায়ন | মিডিয়া বাজারে নারী মডেল নাকি পন‌্য?

উল্লেখ‌্য নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার এখলাশপুর ইউনিয়নের জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে গৃহবধূকে ধর্ষণে ব্যার্থ হয়ে পরবর্তিতে তাকে বিবস্ত্র করে শারীরিক নির্যাতন এবং ভিডিও ধারণ করে ১মাস পর তা ফেসবুকে অপলোড দেয়ার পর ভিডিওটি ভাইরাল হয় এবং সারাদেশে প্রতিবাদের ঝড় উটে।

অন‌্যদিকে  গত ২৫শে সেপ্টেম্বর এম.সি. কলেজের ছাত্রবাসে ছাত্র নামধারী সন্ত্রাসীদের দ্বারা স্বামীকে আটক রেখে স্ত্রীকে গনধর্ষণের ঘটনা ঘটে।এ ঘটনায় ছাত্রলীগের ৬জন নেতাকর্মী জড়িত থাকার অভিযোগে পরবর্তিতে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

ধর্ষণ বিরোধী ছাত্র ঐক্য পরিষদ,মিরপুর,বাহুবল,হবিগন্জ।