আঙ্গুল হাড়া ও আমবাত হলে করনীয়

সম্মানিত পাঠকবৃন্দ প্রতিদিনের ধারাবাহিকতায় আজ ও আমরা আপনাদের সামনে চর্মরোগ এর সমাধান নিয়ে হাজির হয়েছি!আঙ্গুল হাড়া কিংবা আমবাত হলে করনীয়সমুহ আজ বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হবে।

আঙ্গুল হাড়া
আঙ্গুল হাড়া একটি ইনফেকশন জনিত সমস্যা। এই সমস্যা যে কারও হতে পারে ॥ এটা তেমন কঠিন সমস্যা না। ডাক্তারেরের পরামর্শ নিলে জটিলতা না বেড়ে অল্প সময়ের মধ্যেই ভাল হয়ে যায়।

রোগের কারণঃ-
১। কোন কারণে আঙ্গুলে আলপিন, সুচ ইত্যাদি ফুটলে বা তীত্র আঘাত লাগলে, নখ কেটে গেলে তাতে ইনফেকশন হলে আঙ্গুল হাড়া
হতে পারে।

রোগের লক্ষল সমুহঃ
১। আক্রান্ত স্থানে কাটা ফোটার মত ব্যথা হয় ও দপদপ করে। পরে তাতে পুজ হয়।
২। কখনো আগুনের মত জ্বালা হয় – গরমে কমে।
৩। লালার মত বা দুর্ণদ্ধময় পুঁজ খারাপ লক্ষণ ।

খাবার ও চিকিৎসাঃ
১। এ রোগে টক ও মসলাযুক্ত খাদ্য খাওয়া যাবে না।
২। অত্যদিক টাটানিতে বেগুন কেটে গর্ত করে তা আঙ্গুলের উপর দিয়ে রাখলে আরামবোধ হয় ॥
৩। সেপটিক যেন না হয় সেজন্য সবসময় সাবধান করা উচিত ।

আমবাত
শরীরের যে কোন জায়গায় চামড়ার উপরের লালা বর্ণের চাকা হয়ে ফুলে উঠে, তার নাম আমবাত ।

রোগের কারনঃ
১। জানা অজানা অনেক কারণে এটি হতে পারে।
২। তবে এলার্জিক কারণে বেশি হতে পারে ॥
৩। পচা মাছ মাংস খেলে।
৪। অধিক পরিমাণে গরু, হাঁসের মাংস, হাঁসের ডিম, বেগুন, ডাল, ইলিশ মাছ, চিঙুড়ী মাছ, পুই শাক, কাঁকড়া, পাকা কলা ইত্যাদি খেলে।

রোগের লক্ষন সমূহঃ
১ অত্যন্ত চুলকায় ॥ চুলকানোর পর জ্বালা করে । অল্প সময়ের মধ্যে বেশি পরিমাণে এ ইরাপশন দেখা দেয় ॥ ২/৩ ঘন্টার মধ্যে এ
ইরাপশন মিলে যায় আবার অন্য জায়গায় দেখা যায়।
২। সাধারণত শরীরের কাপড় খুলে ফেললে অধিক চুলকায় এবং এই ইরাপশন বের হয়।

খাবার ও চিকিৎসাঃ
১। যেসব খাবার খেলে এলার্জি প্রতিক্রিয়া দেখা দেয় তা বাদ দিতে হবে।
২। আমাশয় থাকলে তার চিকিৎসা করতে হবে।
৩। কৃমি থাকলে তার চিকিৎসা করতে হবে॥

Leave a Comment